টেলিটকে মাত্র ৯৭ টাকায় ১০ জিবি ইন্টারনেট (মেয়াদ ১০ দিন)

টেলিটকের ইন্টারনেট অফার মানেই ধামাকা ইন্টারনেট অফার! এখন টেলিটকে মাত্র ৯৭ টাকায় পাচ্ছেন ১০ জিবি ইন্টারনেট। যার মেয়াদ ১০ দিন।

অফারটি টেলিটকের সকল প্রিপেইড ও পোস্টপেইড গ্রাহরা নিতে পারবেন। অফারটি চালু করতে টেলিটকের সকল প্রিপেইড ও পোস্টপেইড গ্রাহকগণ ডায়াল করুন *111*97# এবং উপভোগ করুন ইন্টারনেট দুনিয়ার সকল সেবা। 

অফারটি সরাসরি রিচার্জ অথবা SMS এর মাধ্যমে নিতে পারবেন। প্রিপেইড গ্রাহকগণ ইন্টারনেট অফারটি চালু করতে মেসেজ অপশনে  লিখুন E97 আর পোস্টপেইড গ্রাহকগণ লিখুন F05 এবং পাঠিয়ে দিন ১১১ নম্বরে (চার্জ ফ্রি)। এছাড়াও প্রিপেইড গ্রাহকগণ ৯৭ টাকা রিচার্জের মাধ্যমেও অফারটি গ্রহন করতে পারবেন।

অন্যান্য তথ্যাবলিঃ 

  • ৯৭ টাকায় ১০ জিবি অফারটি সকল প্রিপেইড এবং পোস্টপেইড গ্রাহকের জন্য ।
  • ইন্টারনেট প্যাকটির মেয়াদ শেষে অব্যবহৃত ডাটা ব্যবহার যোগ্য নয়।
  • মেয়াদ শেষে গ্রাহক যদি অন্য কোনো ডাটা প্যাকেজ ক্রয় না করে সেক্ষেত্রে "Pay Per Use" এর রেট প্রযোজ্য হবে।
  • "Pay Per Use" প্যাকেজ রেট হিসাবে সর্বাধিক ৫ টাকা পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে।
  • অফার মূল্যে সম্পূরক শুল্ক, ভ্যাট এবং সারচার্জ অন্তর্ভুক্ত।

টেলিটক বন্ধ সিম অফার। ১৮ টাকা রিচার্জে ৪৫ পয়সা মিনিট যেকোনো নাম্বারে

 টেলিটক বন্ধ সিম অফার। এখন টেলিটক বন্ধ সংযোগে ১৮ টাকা রিচার্জ করে ফেরত আসলেই পাচ্ছেন ৪৫ পয়সা প্রতি মিনিট কথা বলার সুযোগ এবং আরও পাচ্ছেন ফ্রি ইন্টারনেট ও টকটাইম

বন্ধ সিমে ১৮ টাকা রিচার্জ অফারঃ

  • ২ জিবি ফ্রি ইন্টারনেট যার (মেয়াদ ৭ দিন)
  • ২০ মিনিট টকটাইম ফ্রি, যা ব্যবহার করে যেকোনো অপারেটরে কথা বলা যাবে যার (মেয়াদ ৩ দিন)
  • ৪৫ পয়সা/মিনিট, যেকোন অপারেটরে কথা বলা যাবে যার (মেয়াদ ৩০ দিন)

এছাড়া আরও পাচ্ছেনঃ 

প্রতিমাসে ২৩ টাকা রিচার্জে বছর জুড়ে ২৪ জিবি ডাটা ফ্রি! (প্রতি মাসে ২ জিবি করে) 

বন্ধ সিম অফার সংক্রান্ত সকল তথ্যাবলীঃ

  • আপনার সিমটি বন্ধ সিম অফারের আওতাভূক্ত কিনা তা জানতে যেকোন টেলিটক নম্বর থেকে আপনার মোবাইল নম্বরটি লিখে SMS করুন 112 নম্বরে (চার্জ ফ্রি)।
  • অফারটি উপভোগ করার জন্য গ্রাহককে ১৮ টাকা রিচার্জ করতে হবে। রিচার্জকৃত ১৮ টাকা গ্রাহকের মূল একাউন্ট ব্যালেন্সে যোগ হবে।
  • ১৮ টাকা রিচার্জে গ্রাহক ২০ মিনিট ফ্রি ভয়েস (মেয়াদ ৩ দিন), ২ জিবি ফ্রি ডাটা (মেয়াদ ৭ দিন) এবং ৪৫ পয়সা/মিনিট সুবিধা (মেয়াদ ৩০ দিন) উপভোগ করবেন।
  • এছাড়া বন্ধ সিমের আওতাভূক্ত গ্রাহক প্রতিমাসে ২৩ টাকা রিচার্জে একবার (১২ মাসে সর্বোচ্চ ১২ বার) ২ জিবি ফ্রি ডাটা (মেয়াদ ৭ দিন) এবং ৪৫ পয়সা/মিনিট সুবিধা (মেয়াদ ৩০ দিন) উপভোগ করবেন।
  • রিচার্জকৃত ২৩ টাকা গ্রাহকের মূল একাউন্ট ব্যালেন্সে যোগ হবে।
  • সকল ট্যারিফে সম্পূরক শুল্ক, ভ্যাট ও সারচার্জ প্রযোজ্য।
  • অফারটি পরবর্তী ঘোষনা না দেয়া পর্যন্ত চলবে।

গ্রামীনফোন নতুন সিম অফার

গ্রামীণফোন নতুন সিম অফার। সকল নতুন গ্রামীণফোন প্রিপেইড (নিশ্চিন্ত), ডিজুস, বন্ধু, গ্রামীণফোন পাবলিক ফোন এবং ভিলেজ ফোন সংযোগে নিম্নোক্ত অফারগুলো উপভোগ করতে পারবেন।

নতুন সিমে যা যা পাচ্ছেনঃ

  • নতুন সংযোগে পাবেন ৫ টাকা রিচার্জ অ্যামাউন্ট যা সিমের দামের সাথে অন্তর্ভুক্ত
  • ভিলেজ ফোন-এ গ্রাহকগণ পাবেন ৫০ টাকা রিচার্জ অ্যামাউন্ট যা সিমের দামের সাথে অন্তর্ভুক্ত
  • উপরোক্ত অ্যামাউন্ট-এর মেয়াদ প্রাপ্তির দিন থেকে ৩০ দিন হবে (বিতরণের দিনসহ)
  • অ্যামাউন্ট জানতে ডায়াল *৫৬৬#
  • ইন্টারনেট ব্যবহারে গ্রাহককে নতুন সিমে ১.২২ / এমবি, ৬.০৮৭৫ টাকা পর্যন্ত চার্জ প্রযোজ্য হবে। 
  • ডেটা প্যাক কিনতে ডায়াল করুন * 121 * 3 #। (উল্লিখিত দামগুলি এসডি, এসসি এবং ভ্যাট সহ অন্তর্ভুক্ত)।

প্রথমবার ৩৪ টাকা রিচার্জে ফ্রি ইন্টারনেট, ১ পয়সা প্রতি সেকেন্ড:

  • প্রথমবার ঠিক ৩৪ টাকা (ফ্লেক্সিলোড থেকে) রিচার্জে গ্রাহকগণ ২৪ ঘণ্টা যেকোনো লোকাল নম্বরে ১পয়সা/সেকেন্ড কল রেটে কথা বলতে পারবেন, যার মেয়াদ ৩০ দিন। সাথে পাবেন ৭ দিন মেয়াদে ১ জিবি ইন্টারনেট 
  • "যেকোনো লোকাল নম্বর” বলতে দেশের ভেতর যেকোনো নেটওয়ার্কে কল করা বোঝানো হয় (জিপি-অন্য মোবাইল অপারেটর, জিপি-পিএসটিএন এবং জিপি-আইপিটিএসপি) যার মধ্যে কোনো শর্ট কোডে করা কল অন্তর্ভুক্ত নয়।
  • স্পেশাল ট্যারিফ শেষে গ্রাহকগণ রেগুলার প্যাকেজ রেট উপভোগ করবেন
  • স্পেশাল লোয়ার ট্যারিফ-এ থাকা অবস্থায় অন্য কোনো লোয়ার ট্যারিফ প্রযোজ্য হবে না। বোনাস অ্যামাউন্ট, বোনাস মিনিট বা ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স-এ লোয়ার ট্যারিফ প্রযোজ্য হবে না এবং এগুলো আগে ব্যবহৃত হবে
  • বোনাস ও মেয়াদ জানতে ডায়াল *১২১*১*২#
  • প্রথম রিচার্জ অফার শুধুমাত্র প্রথমবারের জন্য প্রযোজ্য, এরপর ৩৪ টাকা রিচার্জের অফার প্রযোজ্য হবে না। ক্যাম্পেইন চলাকালীন উল্লেখিত রিচার্জ পয়েন্টসমূহ (৩৪ টাকা, ১৭ টাকা, ৬৬টাকা) শুধুমাত্র নতুন সংযোগ গ্রহণকারী গ্রাহকের জন্য প্রযোজ্য হবে এবং অন্য সকল গ্রাহকের জন্য সীমাবদ্ধ থাকবে।

দ্বিতীয় রিচার্জ অফার:  ৬৬ টাকা  রিচার্জে ১১০ মিনিট  (যে কোন অপারেটর)

  • শুধুমাত্র ঠিক ৬৬ টাকা দ্বিতীয় রিচার্জে (সকল চার্জ অন্তর্ভুক্ত) উপযুক্ত নতুন প্রিপেইড গ্রাহকগণ ১০ দিন মেয়াদে  ১১০ মিনিট কেনার সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন 
  • দ্বিতীয় রিচার্জ অফার শুধুমাত্র দ্বিতীয়বার রিচার্জের জন্য প্রযোজ্য। যদি গ্রাহক ৬৬ প্রথম বা তৃতীয় বা পরবর্তী রিচার্জ করেন তবে তিনি অফারটি পাবেন না।
  • দ্বিতীয় রিচার্জ প্রথম দুই দিনের মধ্যে হতে হবে (এক্টিভেশনের দিন + ১ দিন ) তারপরে - এই ৬৬ টাকা  দ্বিতীয় রিচার্জ অফারটি গ্রাহকের জন্য প্রযোজ্য হবে না।
  • উপযুক্ত গ্রাহকগণ শুধুমাত্র একবার দ্বিতীয় রিচার্জ অফারটি কেনার সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন। ক্যাম্পেইন চলাকালীন ৬৬ টাকা রিচার্জ পয়েন্ট  শুধুমাত্র উপযুক্ত নতুন সংযোগ গ্রহণকারী গ্রাহকের জন্য প্রযোজ্য হবে এবং অন্য সকল গ্রাহকের জন্য সীমাবদ্ধ থাকবে।
  • অফারের মূল্য সম্পূরক শুল্ক, ভ্যাট ও সারচার্জ সহ।

বিশেষ বান্ডেল অফার :

মূল্যঅফারমেয়াদ
১১৯ টাকা
  • ১০০মিনিট (যেকোনো লোকাল নম্বর)
  • ২ জিবি ইন্টারনেট ( জিবি + ১জিবি 4G ইন্টারনেট)
৩০ দিন

নতুন সিম অফারের আরো বিস্তারিত:

  • সকল নতুন গ্রামীণফোন প্রিপেইড (নিশ্চিন্ত, ডিজুস) এবং নতুন প্রিপেইড পোর্ট-ইন গ্রাহকগণ এই অফার উপভোগ করতে পারবেন।
  • এই অফার শুধুমাত্র সংযোগ চালু হবার দিনের জন্য প্রযোজ্য (এক্টিভেশনের দিন)। এই অফার শুধুমাত্র প্রথম দিনের/এক্টিভেশনের দিনের মধ্যে নিতে হবে তারপরে অর্থাৎ এক্টিভেশনের দ্বিতীয় দিন থেকে - এই ১১৯ টাকা অফারটি গ্রাহকগণের জন্য প্রযোজ্য হবে না।
  • উপযুক্ত গ্রাহকগণ শুধুমাত্র একবার এই অফারটি কেনার সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন। ক্যাম্পেইন চলাকালীন ১১৯ টাকা রিচার্জ পয়েন্ট শুধুমাত্র উপযুক্ত নতুন সংযোগ গ্রহণকারী গ্রাহকের জন্য প্রযোজ্য হবে এবং অন্য সকল গ্রাহকের জন্য সীমাবদ্ধ থাকবে।
  • এই অফারটি পেতে গ্রাহককে ঠিক ১১৯ টাকা ফ্লেক্সিলোড থেকে (সকল চার্জ অন্তর্ভুক্ত) রিচার্জ করতে হবে। অফারের মূল্য সম্পূরক শুল্ক, ভ্যাট ও সারচার্জ সহ।

১৭ টাকা রিচার্জে ১ জিবি ইন্টারনেট:

  • গ্রাহকগণ ১৭ টাকা রিচার্জে  (সকল চার্জ অন্তর্ভুক্ত) ৭ দিন মেয়াদে ১ জিবি ইন্টারনেট কেনার সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন
  • রিচার্জের ক্ষেত্রে: গ্রাহককে ঠিক ১৭ টাকা ফ্লেক্সিলোড থেকে (সকল চার্জ অন্তর্ভুক্ত) রিচার্জ করতে হবে ৭ দিন মেয়াদে ১ জিবি ইন্টারনেট কিনতে
  • গ্রাহকগণ প্রতি মাসে সর্বোচ্চ একবারই  ফ্লেক্সিলোড থেকে ১৭ টাকায় (সকল চার্জ অন্তর্ভুক্ত) ১ জিবি ইন্টারনেট কিনতে পারবেন
  • ১৭ টাকায় (সকল চার্জ অন্তর্ভুক্ত) ১ জিবি ইন্টারনেট অফারটি সংযোগ চালু হওয়ার মাস সহ ৯ মাস পর্যন্ত চালু থাকবে
  • ১৭ টাকায় (সকল চার্জ অন্তর্ভুক্ত) ১ জিবি ইন্টারনেট অফারটির মেয়াদ ৭ দিন
  • ক্যাম্পেইন চলাকালীন গ্রাহকগণ সর্বোচ্চ ৯ বার অফারটি নিতে পারবেন
  • ক্যাম্পেইন চলাকালীন ১৭ টাকা রিচার্জ পয়েন্ট শুধুমাত্র নতুন সংযোগ গ্রহণকারী গ্রাহকের জন্য প্রযোজ্য হবে এবং অন্য সকল গ্রাহকের জন্য সীমাবদ্ধ থাকবে।
  • প্রতি মাসে কেনার অবশিষ্ট সুযোগ জানতে ডায়াল *১২১*১১১১#
  • ইন্টারনেট ভলিউম শেষ হবার পর ইন্টারনেট ব্যবহারে কাস্টমার এর টাকা ১.০০ /MB চার্জ প্রযোজ্য হবে সর্বোচ্চ ৫MB পর্যন্ত। একই রেটে ২০০MB পর্যন্ত নিরবিছিন্ন ইন্টারনেট সংযোগ অব্যাহত রাখতে ডায়াল করুন *121*3352# অথবা ইন্টারনেট প্যাক কিনতে ডায়াল করুন *121*3#.
  • সম্পূরক শুল্ক, ভ্যাট ও সারচার্জ প্রযোজ্য

নতুন গ্রামীণফোন  প্রিপেইড সিমে  ফ্রি  বায়োস্কোপ বান্ডেল

নতুন গ্রামীণফোন  প্রিপেইড (নিশ্চিন্ত এবং ডিজুস) গ্রাহকগণ ৭ই মে,2020 থেকে ‘বায়োস্কোপ প্রাইম পাস’ প্রথম মাসে ফ্রি সাব্‌সক্রিপশন করতে পারবেন (5GB বায়োস্কোপ

স্ট্রিমিং ইন্টারনেট সহ).

অন্যান্য তথ্য:

  • নতুন গ্রামীণফোন প্রিপেইড (নিশ্চিন্ত এবং ডিজুস) গ্রাহকগণ USSD *121*5347# ডায়াল করে প্রথম মাসে বায়োস্কোপ প্রাইম পাসের ফ্রি সাব্‌সক্রিপশন ( 5GB বায়োস্কোপ
    স্ট্রিমিং ইন্টারনেট সহ) ৩০ দিনের জন্য উপভোগ করতে পারবেন ।
  • নতুন গ্রামীণফোন প্রিপেইড (নিশ্চিন্ত এবং ডিজুস) গ্রাহকগণ কে এই ফ্রি বায়োস্কোপ অফারের জন্য ৩০ দিনের মধ্যে USSD *121*5347#  ডায়াল করতে হবে।
  • ফ্রি বায়োস্কোপ অফারটি শুধুমাত্র প্রথমবারের/ একবারের জন্য প্রযোজ্য । নতুন গ্রামীণফোন প্রিপেইড (নিশ্চিন্ত এবং ডিজুস) গ্রাহকগণ কেবল একবারের জন্য এই ফ্রি অফারটি উপভোগ করতে পারবেন।
  • ফ্রি বায়োস্কোপ অফারটি শুধুমাত্র নতুন সংযোগ গ্রহণকারী (নিশ্চিন্ত এবং ডিজুস) গ্রাহকের জন্য প্রযোজ্য হবে এবং অন্য সকল গ্রাহকগণের জন্য অফারটি প্রযোজ্য হবে না।

টেলিটকে মাত্র ১৫৬ টাকায় ১০ জিবি ইন্টারনেট। মেয়াদ ১৫ দিন

টেলিটক তাদের অপরাজিতা ব্যাবহারকারীদের জন্য নিয়ে এলো দারুন অফার। মাত্র ১৫৬ টাকায় ১০ জিবি ইন্টারনেট, যার মেয়াদ থাকবে ১৫ দিন। 

অফারটি চালু করতে চাইলে ডায়াল করুন *১১১*১৫৬# অথবা  রিচার্জ করুন ১৫৬ টাকা ।

বিস্তারির তথ্যাবলীঃ

  • এই অফার সকল অপরাজিতা গ্রাহকের জন্য প্রযোজ্য।
  • অফারটি MyTeletalk App থেকেও গ্রহণ করা যাবে।
  • মেয়াদ শেষে অব্যবহৃত ডাটা ব্যবহার যোগ্য নয়
  • মেয়াদ শেষে গ্রাহক যদি অন্য কোনো ডাটা প্যাকেজ ক্রয় না করে সেক্ষেত্রে "Pay Per Use" এর রেট প্রযোজ্য হবে।
  • "Pay Per Use" প্যাকেজ রেট হিসাবে সর্বাধিক ৫ টাকা পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে।
  • অফার মূল্যে সম্পূরক শুল্ক, ভ্যাট এবং সারচার্জ অন্তর্ভুক্ত।

গ্রামীনফোনে ৪৮ টাকা রিচার্জে ৪৮ পয়সা মিনিট যেকোনো নাম্বারে | মেয়াদ ৪৮ ঘন্টা

গ্রামীণফোন-এর প্রিপেইড গ্রাহকগণদের (ইআরএস ও বিপিও গ্রাহক ব্যতীত) সকলকে জানানো যাচ্ছে যে, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ থেকে রিচার্জে লোয়ার কলরেট অফার চালু হচ্ছে।

 এতে থাকছে দারুন অফারঃ

  •  রিচার্জ টাকা= ৪৮ টাকা
  • অফার= ৪৮ পয়সা মিনিট যেকোনো নাম্বারে ৪৮ ঘন্টা (১০ সেকেন্ড পাল্‌স

অফারটির বিস্তারিতঃ

  • রিচার্জের অ্যামাউন্ট গ্রাহকের মূল অ্যাকাউন্টে যোগ হবে 
  • অফারটি পেতে গ্রাহককে ঠিক উল্লেখিত অ্যামাউন্ট রিচার্জ করতে হবে 
  • "যেকোনো লোকাল নম্বর" বলতে দেশের ভেতর যেকোনো নেটওয়ার্কে কল করা বোঝানো হয় (জিপি-জিপি, জিপি-অন্য মোবাইল অপারেটর, জিপি-পিএসটিএন ও জিপি-আইপিটিএসপি) যার মধ্যে কোনো শর্ট কোডে করা কল অন্তর্ভুক্ত নয় 
  • অফার চলাকালীন এই স্পেশাল কলরেট রেগুলার প্যাকেজ কলরেট, সুপার FnF, FnF, কমিউনিটি ট্যারিফ (বিএস প্রিপেইড ১ ও ৫ সহ) -এর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য 
  • এই স্পেশাল কলরেট – ক্রয়কৃত মিনিট, বোনাস মিনিট, বোনাস অ্যামাউন্ট এবং ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স-এর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না। ক্রয়কৃত মিনিট, বোনাস মিনিট, বোনাস অ্যামাউন্ট এবং ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স আগে ব্যবহৃত হবে 
  • ক্যাম্পেইন চলাকালীন একাধিকবার অফারটি নেওয়া যাবে। একাধিক রিচার্জে সর্বোচ্চ মেয়াদটি প্রযোজ্য হবে 
  • স্পেশাল কলরেট এর মেয়াদ শেষে গ্রাহক তার পূর্ববর্তী অফার/প্যাকেজে ফিরে যাবেন 
  • অফারের মেয়াদ জানতে ডায়াল করুন *121*1*2# 
  • অফারটি বন্ধ করতে ডায়াল করুন *121*1003*13# 
  • অফারটি skitto গ্রাহকদের জন্য প্রযোজ্য নয় 
  • সকল চার্জে ১০% সম্পূরক শুল্ক প্রযোজ্য। সম্পূরক শুল্কসহ মোট মূল্যের উপর ১৫% ভ্যাট প্রযোজ্য+মূল রেটের উপর ১% সারচার্জ প্রযোজ্য 
  • পরবর্তী নোটিশ না দেয়া পর্যন্ত এই অফার চলবে।



এয়ারটেল ৩০ জিবি ইন্টারনেট মাত্র ৩২৯ টাকা । মেয়াদ ৩০ দিন

আপনার এয়ারটেল সিমে মাত্র ৩২৯ টাকায় পাবেন ৩০ জিবি ইন্টারনেট। অফারটির মেয়াদ ৩০ দিন। অফারটি এয়ারটেলের সকল গ্রাহকরা নিতে পারবে।  অফারটি নিতে গ্রাহককে রিচার্জ করতে হবে ৩২৯ টাকা বা ডায়েল করতে হবে *২১২*৩২৯#

অফারটির বিস্তারিতঃ

  • মাএ ৩২৯ টাকায় ৩০ জিবি ইন্টারনেট
  • ইন্টানেট মেগাবাইট এর মেয়াদ ৩০ দিন (প্রত্যেক সপ্তাহে ৭জিবি করে ৪ সপ্তাহে মোট ২৮ জিবি এবং ২ দিনে ২ জিবি)
  • ইন্টারনেট অফারটি চালু করতে রিচার্জ ৩২৯ টাকা বা ডায়েল *212*329#
  • ইন্টারনেট ব্যালেন্স জানতে ডায়েল *3# বা *8444*88#

অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলে ফাইল হাইড করুন সফটওয়্যার ছাড়াই

বর্তমানে প্রায় আমরা সকলেই অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহার করি । আমাদের মোবাইলে বিভিন্ন ধরনের ফাইল থাকে হতে পারে সেটা কেন ছবি বা ভিডিও বা অন্য কিছু যা নিজে ছাড়া কাউকে দেখাতে চাই না। তাই এগুলো লুকিয়ে রাখার জন্যে আমাদের প্রয়োজন পড়ে বিভিন্ন ধরনের লক সফটওয়্যার গুলো যা দিয়ে ফাইল গুলো লক করে রাখা যায়।

কিন্তু আমাদের অনেকের কাছে এটা একটা বিরক্তিকর ব্যাপার মনে হয়।  কারণ আলাদা করে অ্যাপ ডাউনলোড করে ফাইল লক করে রাখা অনেক ঝামেলা।
তাই আজ আপনাদের মাঝে একটি টিপস শেয়ার করব যার মাধ্যমে সহজেই মোবাইলে ফাইল লুকিয়ে রাখতে পারবেন।

চলুন শুধু করা যাকঃ

১। প্রথমে আপনার ফোনের ফাইল ম্যানেজার সফটওয়্যারটি ওপেন করুন। 
২। এরপর একটি নতুন ফোল্ডার করুন এবং যে সকল ফাইল অর্থ্যাৎ ছবি,ভিডিও, ইত্যাদি লুকিয়ে রাখতে চান তা ঐ নতুন ফোল্ডারে Cut/Move করে রাখুন। 
৩। এখন ঐ নতুন ফোল্ডারটি Rename করে নামের আগে এক ডট(.) বসিয়ে দিন যেমন: (.FolderName)
তারপর দেখুন নতুন ফোল্ডার টি আর খঁজে পাওয়া যাচ্ছে না!!!
তাহলে এখন আপনার ফাইল গুলো লুকানো হলো। 

এখন যেভাবে লুকানো ফাইল খুঁজে পাবেনঃ 


এখন আপনার লুকানো ফাইল গুলো যখন প্রয়োজন হবে তখন ফোনের ফাইল ম্যানেজার ওপেন করে  সেটিংস (Setting) গিয়ে Show Hidden File নামক অপশন ওটা চালু করে দিবেন তখন লুকানো ফাইল পেয়ে যাবেন এবং কাজ শেষে অপশন টি অফ করে দিবেন।

এসএসসি পরীক্ষার রুটিন ২০২০

এসএসসি পরীক্ষার রুটিন ২০২০।  এবার এসএসসি পরীক্ষা শুরু হবে ১ ই ফেব্রুয়ারি ২০২০।

পরীক্ষার সময় সূচি যেকোনো সময় পরিবর্তন অসতে পারে। তাই টিভি, বোর্ড ওয়েবসাইট, পত্রিকা ও অনলাইন খবর লক্ষ রাখুন। রুটিনে কোনো পরিবর্তন আসলে আমারা দায়ী নয়।

জেএসসি পরীক্ষার রুটিন ২০১৯

জেএসসি পরীক্ষার রুটিন ২০১৯। পরীক্ষা শুরু ২ নভেম্বর হতে।
পরীক্ষার সময় সূচি যেকোনো সময় পরিবর্তন অসতে পারে।  তাই টিভি, বোর্ড ওয়েবসাইট, পত্রিকা ও অনলাইন খবর লক্ষ রাখুন।  রুটিনে কোনো পরিবর্তন আসলে আমারা দায়ী নয়।

গুগুল ক্রোম স্টোর এর সকল এক্সটেনশন মোবাইলে ব্যবহার করবেন যেভাবে

আমরা জানি কম্পিউটারের গুগল ক্রোম ব্রাউজারের বিভিন্ন এক্সটেনশন আমাদের বিভিন্ন ধরনের সুবিধা দিয়ে থাকে কিন্তু আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে তাদের কম্পিউটার নাই তারা  গুগল ক্রোম এর এক্সটেনশন ব্যবহারের সুবিধা থেকে বঞ্চিত ।


গুগল ক্রোম ব্রাউজারের বিভিন্ন এক্সটেনশন বিভিন্ন সুবিধা দিয়ে থাকে।  যেমনঃ ভিপিএন ব্যবহারের সুযোগ, বিভিন্ন টুলস , ক্রোম ব্রাউজারের থীম আরও ইত্যাদি ।  বিভিন্ন কাজের উপর এবং কাজের লোকের উপর নির্ভর  করে অনেক এক্সটেনশন তৈরী করা আছে যার ব্যবহারের মাধ্যমে কাজ গুলো আরও সহজে করা সম্ভব হয়। 
কিন্তু আমরা অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারী হওয়ার কারণে এই গুলোর ব্যবহার করতে পারছি না। কিন্তু চিন্তার কোন কারণ নেই আজ আপনাদের সাথে এমন এক ব্রাউজার পরিচয় করিয়ে দিব যার মাধ্যমে ক্রোম ব্রাউজারের সকল এক্সটেনশন গুলো সহজেই মোবাইলে ব্যবহার করতে পারবেন ।
সেই ব্রাউজার টির নাম হলো Yandex Browser যেটি অনেক টাই ক্রোম ব্রাউজারের মতো কাজ করে । Yandex Browser ক্রোম ইজ্ঞিন ব্যবহার করে অর্থ্যাৎ ক্রোম ব্রাউজারের সকল বৈশষ্ট্য এখানে পাবেন । 
ব্রাউজার ডাউনলোড লিংকঃ  
ব্রাউজার ডাউনলোড করার পর গুগল ক্রোম স্টোরে গিয়ে আপনার প্রয়োজনীয় এক্সটেনশন গুলো ইনস্টল করে আপনার কাজ গুলোকে আরও সহজ করে তুলুন।

যেভাবে কম্পিউটারে দ্রুত টাইপ শিখবেন


কম্পিউটারে দ্রুত টাইপ করতে পারাটা এখন একটি দক্ষতা। বর্তমান তথ্য ও প্রযুক্তির যোগে এ দক্ষতার কদর রয়েছে। প্রযুক্তির এই যুগে দ্রুত টাইপ করতে না পারায় অনেক সময়ের অপচয় হয়। সংক্ষেপে যদি কম্পিউটার  দ্রুত টাইপ করার ‘গোপন রহস্য’ প্রকাশ করতে বলা হয়, তবে মনে রাখতে হবে যে এর জন্য আসলে তেমন কোনো সংক্ষিপ্ত পথ নেই। তবে কিছু  পদ্ধতি আছে, যার মাধ্যমে টাইপ করার দক্ষতাকে নিয়মিত অনুশীলনের মাধ্যমে বাড়িয়ে নেওয়া যায়।

আরামদায়ক জায়গা:


দ্রুত টাইপ করার জন্য বসার জন্য উপযোগী ভালো ও স্বস্তিকর জায়গা প্রয়োজন হয় । খোলামেলা ও আরামদায়ক জায়গা হলে  এতে দ্রুত টাইপ করতে সুবিধা হয়। ল্যাপটপে বা কিবোর্ড নিয়ে দ্রুত টাইপ করতে গেলে সেটি কোলের ওপর রাখার চেয়ে টেবিলের ওপর রেখে টাইপ করলে দ্রুত হবে।

ঠিক হয়ে বসা:

দ্রুত টাইপ করার জন্য সঠিক হয়ে বসা জরুরি। সোজা হয়ে বসে কবজি যাতে কিবোর্ড বরাবর থাকে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এতে আঙুল এর মধ্যমে কিগুলো ঠিকমতো চালাতে পারবেন। বেশি বেশি ঝুঁকে টাইপ না করাই ভালো। আরামদায়ক উচ্চতায় বসে টাইপ করুন এতে দ্রুত টাইপ করা যাবে।

হাত সঠিক স্থানে রাখুন:


কিবোর্ডের ওপর ঠিকমতো হাত না রাখতে পারলে দ্রুত টাইপ করা যায় না। ভুলভাবে কিবোর্ডের ওপর হাত রাখার ভুলটিই বেশি দেখা যায়। তাই কিবোর্ডে আঙুল রাখার নিয়মটি খেয়াল রাখবেন । বাঁ হাতের তর্জনীতে রাখুন ‘এফ’ কি, মধ্যমাতে ‘ডি’, অনামিকাতে ‘এস’, কড়ে আঙুলে ‘এ’। ডান হাতের তর্জনী রাখুন ‘জে’, মধ্যমাতে ‘কে’, অনামিকাতে ‘এল’ ও কড়ে আঙুল রাখুন ‘সেমিকোলন’ কিতে। বাঁ ও ডান হাতের বৃদ্ধা আঙুল রাখুন স্পেস বারে।

অনুশীলন শুরু:

আঙুল ঠিকমতো রাখার পর বিভিন্ন শব্দ টাইপ করতে থাকুন। এভাবে অনুশীলন চালিয়ে যান। শুরুতে যে কিগুলোতে আঙুল রেখেছেন, তা চেপে টাইপ শুরু করুন। ‘এএসডিএফ’ এরপর স্পেস দিয়ে ‘জেকেএল; ’ এরপর বড় হাতের অক্ষরে এ অক্ষরগুলো টাইপ করার চেষ্টা করুন। এরপর নিচের সারির কিগুলোতে আঙুল রেখে এই কিগুলো টাইপ করুন। একই সঙ্গে ওপরের সারিতে আঙুল রেখে ওই কিগুলো টাইপ করার চেষ্টা করুন। এবার কিবোর্ডের দিকে না তাকিয়েই কিগুলো চেপে টাইপ করার চেষ্টা করতে পারেন।

টাচ টাইপিং শেখা:

শুরুতে টাচ টাইপিংয়ের দক্ষতা খুব কঠিন মনে হতে পারে। কিন্তু একবার দক্ষ হয়ে গেলে টাচপ্যাড ব্যবহার করে সবচেয়ে দ্রুত টাইপ করা যায়। টাচ টাইপ শিখতে খুব ধীরে কিবোর্ডের দিকে না তাকিয়ে অনুশীলন শুরু করুন। ধীরে ধীরে আপনার টাইপের গতি বাড়ান। শুরুতে কঠিন মনে হলেও লেগে থাকুন। ধীরে ধীরে দ্রুত টাইপ শিখে যাবেন।
অনুশীলন চালিয়ে যান:

দ্রুত টাইপ শেখার জন্য অনুশীলনের বিকল্প নেই। যত টাইপ করবেন, তত দ্রুত ও নির্ভুল টাইপ করা শিখে যাবেন। তবে এ জন্য ধৈর্য থাকতে হবে।

দ্রুত টাইপ শেখার জন্য উপরের সবগুলো তথ্যের যথাযথ ব্যবহার করুন এবং ধৈর্য রাখুন।  তাহলে আপনিও একদিন অনেক দ্রুত কম্পিউটারে টাইপ করতে পারবেন।